নাঙ্গলকোটে সংঘর্ষ: বিএনপির ৫শত নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে পুলিশের মামলা

 

বিশেষ  প্রতিনিধি।

কুমিল্লার নাঙ্গলকোটে পুলিশের ওপর হামলা ও গাড়ি ভাঙচুরের ঘটনায় বিএনপির পাঁচ শতাধিক নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে মামলা করা হয়েছে। এ ঘটনায় জড়িত থাকার দায়ে বৃহস্পতিবার (১ সেপ্টেম্বর) সকাল পর্যন্ত উপজেলার বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে ১৯ নেতাকর্মীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

বৃহস্পতিবার (১ সেপ্টেম্বর) দুপুরে নাঙ্গলকোট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ফারুক হোসেন এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান, বুধবার সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত নাঙ্গলকোট উপজেলা সদরে বিএনপি নেতাকর্মীরা জ্বালানি তেলসহ দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতির অভিযোগে বিক্ষোভ মিছিলের নামে তাণ্ডব চালিয়েছে। এ সময় পুলিশ বাধা দিতে গেলে তারা ক্ষিপ্ত হয়ে পুলিশের ওপর হামলা চালায়। এতে আমিসহ আমাদের অন্তত ৫ জন পুলিশ কর্মকর্তা আহত হন। ভাঙচুর করা হয় পুলিশ বহনকারী গাড়িও।

এ ঘটনায় বুধবার রাতে নাঙ্গলকোট থানার উপপরিদর্শক (এসআই) সাধন চন্দ্র নাথ বাদী হয়ে ৫০ জনের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাত নামা ৪৫০ জনের নামে মামলা করেন। পরে উপজেলার বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে বৃহস্পতিবার দুপুর পর্যন্ত ১৯ জনেক গ্রেফতার করা হয়েছে। দুপুরে আদালতের মাধ্যমে এদের কারাগারে পাঠানো হয়েছে বলে ওসি ফারুক হোসেন জানান।

এর আগে জ্বালানি তেলসহ দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতি এবং ভোলায় পুলিশের গুলিতে ছাত্রদল ও স্বেচ্ছাসেবক দলের দুই নেতা নিহতের প্রতিবাদে বুধবার সকালে নাঙ্গলকোট উপজেলা সদরে বিএনপি বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশের আয়োজন করে। ওই সমাবেশে যোগ দিতে সকাল ৭টা থেকে বিভিন্ন ইউনিয়নের নেতাকর্মীরা মিছিল নিয়ে সমাবেশ স্থলে জড় হতে থাকেন।

সকাল পৌনে ১০টার দিকে বিএনপির নেতাকর্মীরা বিক্ষোভ মিছিল নিয়ে বের হয়ে রেলগেট ও লোটাস চত্বর এলাকায় আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীদের সঙ্গে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়েন। এতে উভয় গ্রুপের শতাধিক নেতাকর্মী আহত হয়েছেন বলে দাবি করের দুই দলের নেতারা। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে নাঙ্গলকোট থানা পুলিশ বেশ কয়েক রাউন্ড টিয়ারশেল ও ফাঁকা গুলি বর্ষণ করেন। পরে পরিস্থিতি শান্ত হয়।

আরো পড়ুনঃ